জয়া-নওয়াজউদ্দিনের সিরিজে ইতিহাস ‘বিকৃত’র অভিযোগ
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩ কার্তিক ১৪২৮

জয়া-নওয়াজউদ্দিনের সিরিজে ইতিহাস ‘বিকৃত’র অভিযোগ

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১

জয়া-নওয়াজউদ্দিনের সিরিজে ইতিহাস ‘বিকৃত’র অভিযোগ
ভারতীয় পরিচালক সায়ন্তন মুখোপাধ্যায় নির্মিত রাজনৈতিক কাহিনী-নির্ভর ইতিহাসভিত্তিক ওয়েব সিরিজে বলিউডের নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর সঙ্গে বাংলাদেশি অভিনেত্রী জয়া আহসান অভিনয় করবেন বলে সম্প্রতি খবর আসে। তবে এই ওয়েব সিরিজে ইতিহাস ‘বিকৃত’ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিপ্লবী চারু মজুমদারের ছেলে অভিজিৎ মজুমদার।

ওই ওয়েব সিরিজে বিপ্লবী চারু মজুমদারের স্ত্রী লীলা মজুমদারের যে চরিত্রে দেখা যাবে জয়াকে, সে চরিত্রকে কল্পনাপ্রসূত বলে অভিযোগ করেছেন অভিজিৎ মজুমদার।

জানা গেছে, ১৯৬৭ সালের নকশালবাড়ি আন্দোলনের পটভূমিকায় নির্মিত হবে ওয়েব সিরিজটি। তৎকালীন বিতর্কিত পুলিশ অফিসার রুণু গুহ নিয়োগীর লেখা ‘সাদা আমি কালো আমি’ উপন্যাস অবলম্বনে বাংলা, হিন্দি, ইংরেজি তিনটি ভাষায় তৈরি হবে এই সিরিজ।

প্রখ্যাত বিপ্লবী চারু মজুমদারের চরিত্রে নওয়াজ এবং জয়া তার স্ত্রী লীলা মজুমদারের চরিত্রে জয়া অভিনয় করবেন বলে জানান পরিচালক সায়ন্তন।

অভিজিৎ মজুমদার অভিযোগ করে বলেন, ‘সাদা আমি কালো আমি’ একটি বিকৃত বই, এখানে রুনু গুহ নিয়োগী কীভাবে বীরত্বের সঙ্গে চারু বাবুকে গ্রেফতার করেছিলেন এবং জেলের মধ্যে তার সমস্ত ওষুধ বন্ধ করে কার্যত ঠাণ্ডা মাথায় তাকে খুন করেন সে কথা লিখেছিলেন। বর্তমান সময়ে ঠিক যেভাবে স্ট্যান স্বামীকে খুন করা হয়েছে। একজন বাঙালি পরিচালক অথচ নকশাল বাড়ি নিয়ে শুধু বাংলাতেই ১০০–র বেশি বই আছে। সেগুলো ছেড়ে একটি অত্যন্ত অখাদ্য, সাহিত্যগুণ বর্জিত মিথ্যা লেখাকে ভিত্তি করে ওয়েব সিরিজ বানাচ্ছেন।’ পরিচালক সায়ন্তন মুখোপাধ্যায় তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেননি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এছাড়া, রুনু গুহ নিয়োগীর লেখা বইয়ে চারু মজুমদারের স্ত্রীর কোনো প্রসঙ্গ নেই। অথচ ওয়েব সিরিজে তার চরিত্রে পুরোটাই কল্পনা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘বিতর্কিত পুলিশ কর্মকর্তার এই বই প্রকাশের পরে বিবিধ বিতর্ক হয়। পরে বহু সমাজকর্মীর উদ্যোগে এই বইয়ের পাল্টা ‘সাদা রুনু, কালো রুনু’ নামের একটি বই প্রকাশ করা হয়। বাংলার রাজনৈতিক ইতিহাসে নকশাল আন্দোলন ঘিরে বিতর্ক বিদ্যমান। এই ওয়েব সিরিজ সেই বিতর্ক আরও উস্কে দেবে বলেই মনে করছে সচেতন মহল।’

ইসি 
 

আরও পড়ুন

আরও