খিলগাঁও কবরস্থানে চিরনিদ্রায় ফকির আলমগীর
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ২৫ মে ২০২২ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

>

খিলগাঁও কবরস্থানে চিরনিদ্রায় ফকির আলমগীর

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৩:০২ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০২১

খিলগাঁও কবরস্থানে চিরনিদ্রায় ফকির আলমগীর
গণসংগীতশিল্পী ও স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক ফকির আলমগীরকে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের তালতলা কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে।
শনিবার দুপুর আড়াইটায় তার দাফনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

বাদ যোহর চৌধুরীপাড়া মাটির মসজিদে ফকির আলমগীরের দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকেই দাফনের জন্য মরদেহ তালতলা কবরস্থানে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে সকাল ১১টা ১৬ মিনিটে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের পল্লীমা সংসদ প্রাঙ্গণে ফকির আলমগীরের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর সেখান থেকে তার মরদেহ দুপুর পৌনে ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নিয়ে যাওয়া হয়।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যবস্থাপনায় শহীদ মিনারে ফকির আলমগীরের নাগরিক শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠিত হয়। ‘কঠোর বিধিনিষেধ’ ও বৃষ্টি উপেক্ষা করে অনেকেই তাকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানাতে ছুটে যান।

শ্রদ্ধা নিবেদন করে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, গণসংগীত সমন্বয় পরিষদ, পথনাটক পরিষদ, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষক লীগ, দনিয়া সাংস্কৃতিক জোট, মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়, স্পন্দন, আদিঢাকা সাংস্কৃতিক জোট, যুব ইউনিয়ন, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, জাসদ, ছাত্রমৈত্রী, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন।
 
গণসংগীতশিল্পী ও স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দসৈনিক ফকির আলমগীর শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইউনাইটেড হাসপাতালে মারা যান।

এর আগে, ১৪ জুলাই ফকির আলমগীরের করোনাভাইরাস পজিটিভ ফল আসে। তিনি চিকিৎসকের পরামর্শে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। কিন্তু ১৫ জুলাই সন্ধ্যা থেকে তার জ্বর ও শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন ফকির আলমগীর। ১৮ জুলাই চিকিৎসকেরা তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়।

তার মৃত্যুতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ওএস/এইচআর
আরো পড়ুুন
 

আরও পড়ুন

আরও
               
         
close