‘ফুড ফর গুড’ প্রজেক্টের সফল বছর পার
Back to Top

ঢাকা, রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১১ আশ্বিন ১৪২৮

‘ফুড ফর গুড’ প্রজেক্টের সফল বছর পার

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:৪৪ অপরাহ্ণ, জুন ০৭, ২০২১

‘ফুড ফর গুড’ প্রজেক্টের সফল বছর পার
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইউনিভার্সাল এমিটির ‘ফুড ফর গুড’ প্রজেক্ট সফলভাবে এক বছর পার করেছে। ক্ষুধাকে পরাজিত করার লক্ষ্যে ২০২০ সালের ৭ জুন থেকে এ প্রজেক্টের মাধ্যমে ছিন্নমূল, অসহায়, দুস্থ মানুষের জন্য একবেলা খাবারের ব্যবস্থা করে মানবিক এই সংগঠনটি। এতে ঠাঁই মিলেছে অসংখ্য ক্ষুধার্ত মানুষের।
গত বছর করোনাভাইরাস মহামারির আতঙ্কে পুরো দেশ যখন থমকে ছিল, লকডাউনে মানুষ যখন গৃহবন্দী জীবনযাপন করছিলো, কাজহীন-ঘরহীন ছিন্নমূল মানুষদের তখন ক্ষুধার জ্বালায় মরি মরি অবস্থা। ঠিক সেই সময় যাত্রা শুরু হয় ইউনিভার্সাল এমিটির ‘ফুড ফর গুড’ প্রজেক্টের। 

ইউনিভার্সাল এমিটির স্বেচ্ছাসেবীরা প্রতিরাতে ঘরোয়া পরিবেশে রান্না করে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা এবং খুলনার বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে অসহায়, দুস্থ ও ছিন্নমূল মানুষদের রাতের খাবার পরিবেশন করেছে। এনেছে ক্ষুধায় ক্লান্ত মানুষগুলোর চোখে-মুখে ভুবন ভোলানো হাসি। 

দীর্ঘ এক বছর ধরে চলছে ইউনিভার্সাল এমিটির এই কার্যক্রম; হোক সেটা ঈদ, পূজা, পার্বণ কিংবা রোদ, ঝড়, বৃষ্টি। কোনো কিছুতেই থেমে থাকেনি ছিন্নমূল মানুষের চোখে মুখে হাসি ফোটানোর জন্য তাদের এই আয়োজন। বিশেষ দিনে থেকেছে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা।

ইউনিভার্সাল এমিটি ২০১৫ সাল থেকে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ঘূর্ণিঝড় ইয়াস, আম্পান, বন্যা, নদীভাঙনসহ সব ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানবতার পাশে দাঁড়িয়েছে সংগঠনটি। 

সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে খুলনা ও সাতক্ষীরায় পানিবন্দী অসহায় পরিবারগুলোর কাছে নিজেদের রান্না করা খাবার পৌঁছে দিয়েছে। এক হাজার পরিবারের মাঝে বিতরণ করেছেন শুকনো খাবারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী। 

গত বছর ঈদুল ফিতরের আগে ঘূর্ণিঝড় আম্পান এবং বন্যায় পানিবন্দী ক্ষতিগ্রস্ত খুলনার পাইকগাছা ও দাকোপ এলাকার পরিবারগুলোর হাতে তুলে দিয়েছেন নিত্যপণ্য সামগ্রীসহ ঈদ উপহার। বন্যার সময় যখন কুড়িগ্রামের মানুষ অসহায় অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করেছে তখন ইউনিভার্সাল এমিটি তাদের দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করেছে। 

প্রত্যন্ত অঞ্চলের বিধবা, সন্তানহীন, সন্তানের অবহেলার শিকার মা-বাবাদের রমজানের সিয়াম পালনকে নির্বিঘ্ন করতে ২৫টি জেলায় ৫০০ পরিবারের মাঝে পুরো রমজান মাসের সেহেরি ও ইফতারের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে। ঈদের আনন্দকে ভাগাভাগি করতে সারা দেশে ৩৩টি জেলায় ১৫০০টি পরিবারের মাঝে ঈদের উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ১৫০০টি পরিবারের অসহায় ও বৃদ্ধ মা-বাবার হাতে তুলে দেয়া হয় ঈদের নতুন কাপড় শাড়ি ও লুঙ্গি। পবিত্র মাহে রমজান মাসকে মহিমান্বিত করতে বিভিন্ন মাদ্রাসা, এতিমখানা ও বৃদ্ধাশ্রমে ইফতারি ও সেহেরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে করেছে স্পেশাল খাবারের ব্যবস্থা।

আর্তমানবতার পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্যেকে সামনে রেখে ইউনিভার্সাল এমিটি চালিয়ে যাচ্ছে মানুষের কল্যাণ সাধনে বিভিন্ন কার্যক্রম। দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানায় ইতোমধ্যে ৪০টি ফ্যান বিতরণ করা হয়েছে। 

প্রত্যন্ত অঞ্চলে অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত মানুষদের খাবার পানির সমস্যা নিরসনে ৫৫টি নলকূপ স্থাপন, ২১টি ঘর নির্মাণ, মসজিদের পুনর্নির্মাণ, শারীরিক প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ, গরিব মেধাবী শিক্ষাথীদের উপবৃত্তি প্রদান, দরিদ্র পরিবারগুলোকে সাবলম্বী করার জন্য গরু-ছাগল, সেলাই মেশিন বিতরণ এবং মুদি দোকান করে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে মানবিক সংগঠন ইউনিভার্সাল এমিটি।

এইচআর
লেখকদের উন্মুক্ত প্লাটফর্ম হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে মুক্তকথা বিভাগটি। পরিবর্তনের সম্পাদকীয় নীতি এ লেখাগুলোতে সরাসরি প্রতিফলিত হয় না।
 

আরও পড়ুন

আরও